আলাস্কায় ফেয়ারব্যাঙ্কস বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচ মাথা পাগল বাংলাদেশী

প্রচলিত আছে, বিদ্যা অর্জনের জন্য প্রয়োজনে চীন দেশে যাও। তাই কেউ চায়নায় পড়তে গেছে শুনে আমি অবাক হই নাই কখনো। কিন্তু বিদ্যা অর্জনের জন্য কেউ চীন-টিনকে গুল্লি মেরে বাংলাদেশ থেকে আলাস্কায় চলে আসবে… Continue reading

এসো নিজে করি : নুডলস স্যুপ মেইড ইন চায়না

সাংহাই বিমানবন্দরে নেমেই বুঝলাম এ অন্য দুনিয়া। চারপাশের চেনাজানা বস্তুজগত ঠিকঠাক থাকলেও ভার্চুয়াল জগতের পরিচিত আইকনগুলো ঝপ করেই যেন হারিয়ে গেলো। গেলো তো গেলই। অনেক গুতিয়েও গুগল লোগোখানা দেখিয়ে বাকিটুকুতে এসে দম হারিয়ে… Continue reading

নেদারল্যান্ডে বাঞ্জি জাম্প ও আমার স্মৃতিহীনতা

২০১১ সালের অক্টোবর মাসটা আমার জন্য দারুন গুরুত্বপূর্ণ এক মাস। এই মাসে আমি আমার জীবনের ৬টা অ্যাচিভমেন্ট আনলক করেছিলাম। তার মধ্যে অন্যতম এই বাঞ্জি জাম্প। নেদারল্যান্ডের শেইভ্যানিনগান (সঠিক উচ্চারন এখন আর মনে নাই।… Continue reading

সান ফ্র্যান্সিসকো সায়েন্স হ্যাকাথন ও আমাদের পদক জয়

আমরা ৫ জনের এই দলটা এখন ৭ জনের দল। পরিচয় করিয়ে দেই একটু, ডান থেকে ডেটা সায়েন্টিস্ট ব্রেন্ডা, এআই এক্সপার্ট জুলিয়া, কোডার টিগন, ডিজাইনার কলিন, ইউএক্স ডিজাইনার কেশিয়া, বিখ্যাত দিয়া ও আমি। আমরা… Continue reading

সেক্রামেন্টোর আলো ঝলমলে বিকেলে পার্কের বিষন্ন মেয়েটি

দিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজে আজকে দুপুরে গিয়েছিলাম সেক্রেমেন্টোতে। ক্যালিফোর্নিয়া স্টেটের রাজধানী এই শহরটা বার্কলি থেকে প্রায় দুই ঘন্টার ড্রাইভ। অসম্ভব সাজানো গোছানো। নগর পরিকল্পনাবিদরা অনেক ভাবনা চিন্তা করে প্রচুর গাছ লাগিয়ে এই শান্তির শহরটা… Continue reading

আমার সাড়ে পাঁচবার পৃথিবী পদক্ষিন করার দলিল

আপনি জানেন কি, আমি আমার এই ক্ষুদ্র জীবনে আকাশপথে প্রায় সাড়ে পাঁচবার পুরো পৃথিবী চক্কর দিয়েছি? আপনি জানেন কি আমার জীবনের পাক্কা ১২.৪টা দিন (২৯৬ ঘন্টা ২৫ মিনিট) আমি আকাশে ভেসে ছিলাম, ভ্রমণ… Continue reading

সূর্য উৎসবে বান্দরবান ও জিরো ফিগারের নৌকা

উত্সবের জন্য নাম নিবন্ধন করতেই হাতে ধরিয়ে দেওয়া হলো দুই পাতার এক লিফলেট। গুটি গুটি সুতন্বীএমজে ফন্টে সেখানে নানা নির্দেশাবলি লেখা। তার মধ্যে একটি লাইনে চোখ আটকে গেল, সূর্য উত্সব কোনো বিলাস ভ্রমণ… Continue reading

লিটল ফ্রি লাইব্রেরি আর হামিংবার্ড দর্শন

সান ফ্রান্সিসকো থেকে বার্কলি শহরে ফিরব। মেট্রো স্টেশনে অপেক্ষা করছি ট্রেনের জন্য। হঠাৎ স্টেশনের কোনার দিকে হ্যাবিটট নামের শিশুদের মিউজিয়ামের একটা বিজ্ঞাপন দেখে দাঁড়িয়ে গেলাম—একদল শিশু বালুর মধ্যে লুটোপুটি খাচ্ছে। সে কী আনন্দ… Continue reading

মেনলো পার্কের ফেসবুক ওয়াল থেকে ঈদ মোবারক

  তোপরাজ পইপই করে বলে দিয়েছে যেই দেখবেন স্টেশনে বড় বড় করে লেখা ‘মেনলো পার্ক’ তখনই লাফ দিয়ে ট্রেন থেকে নেমে পড়বেন। এরপরের টেনশন আমার ঘাড়ে। দৈত্যাকৃতির বিশাল দোতলা ট্রেন। উপরের তলাতে বসার… Continue reading

গুগলের আমি গুগলের তুমি, গুগল করে যায় চেনা

২০০৯ সালের ১ এপ্রিল। সকাল সকাল গুগল-কর্মীরা অফিসে ঢুকতে গিয়ে হতবাক। তাঁদের মাউন্টেন ভিউয়ের বিখ্যাত অফিস বিল্ডিংয়ের চারপাশে মনের আনন্দে চরে বেড়াচ্ছে শত শত ছাগল। চারপাশে এমন সবুজ কচি ঘাসের ছড়াছড়ি দেখে এদের… Continue reading

আফ্রিকার সাফারি পার্ক দর্শন ও দুই বাংলাদেশীর আমের আচার

ভোর সাড়ে চারটা। তাড়াহুড়া করে রুম থেকে বের হয়েই দেখি চারদিকে ঘুটঘুটে অন্ধকার। এক হাত দূরের জিনিসও ঠিকঠাক দেখা যায় না। দক্ষিণ আফ্রিকার উত্তর পশ্চিম অঞ্চলে ১৯৪৮৫ বর্গ কিলোমিটার আয়তন নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে… Continue reading

একটি স্ট্যাটাস ও ফাহিম-সৌরর হাড্ডিযুক্ত গরুর মাংস

স্ট্যাটাস দিলে খাবার মেলে। এটা এই ছবির ক্যাপশন। তবে ক্যাপশনটা একটু ব্যাখা দাবি করে। এই কোরবানী ঈদের একদিন পরে হাড্ডিযুক্ত গরুর মাংস না খেতে পারার বেদনা নিয়ে আমি একটি চোখ ছলছল স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম… Continue reading

আমেরিকান রসিকতা: এ বাটার সে বাটার নয় তো!

এই ঈদের তিনদিন আগে আমাদের হঠাৎ নেশা চাপলো বিরিয়ানি খাবো। দিয়া রেস্টুরেন্ট খুঁজে বের করার ব্যাপারে পিএইচডি। সে দ্রুতই ইয়েল্পে একটা ভারতীয় রেস্টুরেন্ট খুঁজে বের করে রিভিউ ঘেটে জানালো, দোকান খারাপ না, লোকজন ভালোই… Continue reading

রেডিওতে যে তিনটি গান শুনতে শুনতে মাথা খারাপ হয়ে গেল

আমেরিকানদের রেডিও শোনার ব্যাপারটা এখনও ঠিক বুঝে উঠতে পারি নাই। তারা খুব একটা সিরিয়াসলি রেডিও শোনে বলে মনে হয় না। ইউটিউব, স্পটিফাই অ্যাপের যুগে এখন পর্যন্ত কাউকে কানে হেডফোন দিয়ে বা অন্য কোন… Continue reading

রিক-রোজানের বাংলাদেশ প্রেম ও শুভ জন্মদিন

জঙ্গলে ঘাস নাই, বনে বাঘ নাই, রাস্তা ফ্রি নাই, কলে পানি নাই, পার্কে গাছ নাই, বাজারে মনের মতো কাজ নাই… এমন নানাবিধ নাই নাই এর ভীড়ে আমাদের অবস্থা কাহিল। অনেকে এসব সহ্য করতে… Continue reading